ক্রিস্টোফার কলম্বাস (Christopher Columbus)

কলাম্বাস একজন বিখ্যাত পর্যটক ও সমুদ্র অভিযাত্রী। সমুদ্রে বারবার অভিযানে তিনি এমন অনেক দেশ আবিষ্কার করেছিলেন যেগুলোর কথা সভ্য মানুষ জানতই না। 

ক্রিস্টোফার কলম্বাস (Christopher Columbus)
ক্রিস্টোফার কলম্বাস (Christopher Columbus)
ক্রিস্টোফার কলম্বাস (Christopher Columbus)

ক্রিস্টোফার কলম্বাস  (Christopher Columbus) এর জন্ম ইতালির জেনোয়া শহরে ১৪৫১ সালে। তাঁর প্রকৃত নাম ছিল কলোম্বো। 

জীবনের বেশির ভাগ সময়ই স্পেন আর পর্তুগালে কাটিয়েছেন বলে তাঁর নামটাও বদলে গিয়ে ওইসব দেশের নামের মতো হয়ে গিয়েছিল। তিনি পড়াশুনো করেছিলেন ইতালির প্যাভিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে। জ্যোতির্বিদ্যা আর জ্যামিতি তাঁর প্রিয় বিষয় ছিল। 

কিন্তু ছেলেবেলা থেকেই তাঁর আরও একটা নেশা ছিল-তা হল সমুদ্রে অভিযান। পৃথিবীর নানা দেশ দেখা আর জানার একটা দুরন্ত ইচ্ছে তাঁর মনের মধ্যে বাসা বেঁধেছিল। বিশেষ করে ভারত, চীন আর জাপানে যাওয়া ছিল তাঁর একটা স্বপ্ন।

কলাম্বাসের বয়স যখন পঁচিশ বছর তখন একবার একটা ফরাসি জাহাজে চড়ে যাচ্ছিলেন তিনি। হঠাৎ সেই জাহাজে আগুন ধরে যায়। প্রাণ বাঁচাবার জন্যে কলাম্বাস সমুদ্রে ঝাঁপিয়ে পড়েন। ভাসতে ভাসতে তিনি গিয়ে ওঠেন পর্তুগালের সমুদ্রতীরে। 

সেই থেকে বেশ কিছুদিন পর্তুগালেই থেকে যান তিনি। বিয়েও করেন একটি পর্তুগিজ মেয়েকে। এসময় জাহাজে করে নতুন নতুন দেশ আবিষ্কারের ইচ্ছেটা আরও জোরালো হল তাঁর। কিন্তু তার জন্যে দরকার জাহাজ আর টাকা—যার কোনোটাই কলাম্বাসের ছিল না।

আরো পড়ুন... আর্কিমিডিস

পর্তুগালের রাজাকে তিনি তাঁর ইচ্ছের কথা বললেন। কিন্তু রাজা সে কথায় তেমন আগ্রহ দেখালেন না। এবার কলাম্বাস গেলেন স্পেনের রাণী ইসাবেলার কাছে। 

রাণী ইসাবেলাও চেয়েছিলেন নতুন নতুন দেশে স্পেনের বাণিজ্য আর আধিপত্য গড়ে উঠুক। তাই তিনি কলাম্বাসকে সাহায্য করতে রাজি হয়ে গেলেন।

১৪৯২ সালের ৩ আগস্ট তিনটি জাহাজ নিয়ে কলাম্বাস সমুদ্রে পাড়ি দিলেন, সঙ্গে মোট ৮৮ জন নাবিক। যে জাহাজে তিনি নিজে ছিলেন, তার নাম ‘সান্তা মারিয়া'—এটাই তাঁর প্রথম অভিযান। 

ক্রিস্টোফার কলম্বাস (Christopher Columbus)
Christopher Columbus carried ideas
that boded ill for Indies natives. 
The Gallery Collection / Corbis


এই অভিযানে তাঁকে অনেক বাধাবিপত্তির মধ্যে পড়তে হয়েছিল। নাবিকরা যখন-তখন গণ্ডগোল করত। একটা জাহাজের পাল ভাঙল একবার, অন্য একটা জাহাজের হালও ভাঙল দু'বার। এভাবে এগোতে এগোতে শেষে কলাম্বাস পৌঁছলেন ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জে। 

সেখান থেকে ১২ অক্টোবর গেলেন নতুন এক দ্বীপে। তার নাম দিলেন সান সালভাদর। এরপর একে একে গেলেন কিউবা ও হাইতি দ্বীপে। 

এসময়ে তাঁর জাহাজ 'সান্তা মারিয়া' খারাপ হয়ে গেলে ওটিকে বাদ দিয়ে অন্য দুটি জাহাজ নিয়ে তিনি স্পেনে ফিরে এলেন। শেষ হল তাঁর প্রথম অভিযান। স্পেনের রাজসভায় তাঁকে জাঁকজমক অভ্যর্থনা দেয়া হল।

১৪৯৩ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর কলাম্বাস আবার বেরোলেন সমুদ্রযাত্রায়। এবারে সঙ্গে নিলেন সতেরোটি জাহাজ আর দেড় হাজার নাবিককে। এবারে আবিষ্কার করলেন ডমিনিকা আর জামাইকা দ্বীপ। 

১৪৯৬ সালে কলাম্বাস ফিরে এলেন স্পেনে। কলাম্বাসের তৃতীয় অভিযান শুরু হয় ১৪৯৮ সালে। এবার উপস্থিত হন দক্ষিণ আমেরিকায়। এবারেও নানা বিপত্তি আর রোগভোগের জন্য তাড়াতাড়ি স্পেনে ফিরে আসেন কলাম্বাস।

কলাম্বাসের শেষ অভিযান শুরু হয় ১৫০২ সালে। এবার তিনি যান পশ্চিম ভারতীয় দ্বীপপুঞ্জের দিকে, যাকে বলা হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। 

এ সময় তিনি মেক্সিকো উপসাগরও আবিষ্কার করেন। কলাম্বাসের ধারণা হয়েছিল তিনি ভারতেই এসেছেন। আসলে তিনি আবিষ্কার করেছিলেন একটা নতুন মহাদেশ আমেরিকা—যার হদিশ লোকে আগে জানত না।


এই আমেরিকা নামটা দেয়া হয়েছিল অন্য এক অভিযাত্রীর নামে। তাঁর নাম আমেরিগো ভেসপুচি। আমেরিগো ওখানে গিয়েছিলেন কলাম্বাসের পরে। কিন্তু কলাম্বাস নিজেই তো জানতেন না তাঁর আবিষ্কারের কথা!

তাঁর শেষ অভিযান থেকে অসুস্থ অবস্থায় স্পেনে ফিরে এসেছিলেন কলাম্বাস। পরে ১৫০৬ সালে পৃথিবীর এই বিখ্যাত অভিযাত্রী ও আবিষ্কারকের মৃত্যু হয়।

Source:


ক্রিস্টোফার কলম্বাস (Christopher Columbus)

Post a Comment

0 Comments