Growing Facebook-centric business, with growing fraud: Beware today.

করােনার প্রাদুর্ভাবে দেশে ফেসবুকভিত্তিক ব্যবসায়িক উদ্যোগ এফ-কমার্স বৃদ্ধি পেয়েছে। ফেসবুকে অন্তত ১০ লাখ ছােট-বড় উদ্যোক্তা রয়েছেন যারা পেজ খুলে ইলেকট্রনিক পণ্য, গ্যাজেটস, ফ্যাশনসামগ্রী, কসমেটিকসসহ নানা ধরনের পণ্য বিক্রি করছেন। তবে এ ধরনের ব্যবসা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে প্রতারণা।

Fraud cycle is growing in F-Commerce


বাড়ছে ফেসবুককেন্দ্রিক ব্যবসা সাথে বাড়ছে প্রতারণাও : সাবধান হোন আজই ।

ভুক্তভােগীদের অভিযােগ ফেসবুকে কেনাকাটা নিয়ে অভিযােগ দিলেও গুরুত্ব দেয় না আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। অধিকাংশ ক্ষেত্রে প্রতারকরা থাকছেন নজরদারি ও ধরাছোঁয়ার বাইরে।

বাংলাদেশ টেলিযােগাযােগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) হিসাব মতে, দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি ৪০ লাখেরও বেশি। এর মধ্যে মােবাইল ফোন থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন ১০ কোটি ৫৬ লাখ মানুষ। আর এই ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর বড় অংশ সামাজিক যােগাযােগমাধ্যম ফেসবুকে আছেন ।

সর্বশেষ মে ২০২১ এর হিসাবে বাংলাদেশে ফেসবুক ব্যবহারকারী ৪ কোটি ৮২ লাখ ৩০ হাজার; যাদের ৪০% নারী। বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশী এই ব্যবহারকারীর কাছে পণ্য বিক্রির সহজ মাধ্যম ফেসবুক। তবে এক্ষেত্রে বেড়েছে প্রতারকের আনাগােনা। তারা নানা কৌশলে ক্রেতা ঠকাচ্ছেন।

ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের সংগঠন ই-ক্যাব এবং ইকমার্স পণ্য ডেলিভারি প্রতিষ্ঠান সূত্র বলছে, ফেসবুকভিত্তিক উদ্যোক্তার সংখ্যা ১০ লাখের কম নয়। ই-কমার্স ভিত্তিক কুরিয়ার সেবা ইকুরিয়ারের প্রধান নির্বাহী বিপ্লব ঘােষ রাহুল বলেন, তারা গড়ে দিনে প্রায় ২৫ হাজার অর্ডার ডেলিভারি দেন; যার অধিকাংশই ফেসবুকভিত্তিক উদ্যোক্তাদের অর্ডার।

তিনি জানান, ইভ্যালি, দারাজের মতাে কয়েকটি ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম বাদে অনলাইনে পুরাে ব্যবসা ফেসবুককেন্দ্রিক। ই-কমার্স কুরিয়ার সেবা পেপারফ্লাইয়ের সহপ্রতিষ্ঠাতা রাহাত আহমেদ জানান, তারা দিনে গড়ে প্রায় ৩০ হাজার ডেলিভারি করেন, যার বড় অংশ ফেসবুকভিত্তিক উদ্যোক্তার পণ্য।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ফেসবুককেন্দ্রিক ব্যবসায় নানা ধরনের প্রতারণা হচ্ছে। এর মধ্যে এক ধরনের প্রতারক যাদের কোনাে পণ্যই নেই কিংবা ব্যবসা নেই, ভুয়া পেজ খুলে অন্য কোনাে অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে পণ্যের ছবি আপলােড করে ক্রেতা আকৃষ্ট করছেন। তারা ক্রেতার থেকে পণ্যের অর্ডার নিয়ে অর্থ হাতিয়ে উধাও হয়ে যাচ্ছেন।

পেজ ডিজঅ্যাবল (নিষ্ক্রিয়) করে দিচ্ছেন। ক্রেতারা ওই পেজ কিংবা তাদের ফোন নম্বরে খুঁজে না পেয়ে বুঝতে পারছেন প্রতারিত হয়েছেন।

এ ধরনের প্রতারণার শিকার একটি দৈনিক পত্রিকার সাংবাদিক মাহমুদ হােসেন বলেন, “আস্থা অনলাইন শপ' নামে একটি পেজের ০১৯১২৫৭৫২০৭ নম্বরে দুই হাজার ৬০০ টাকা বিকাশ করে আমের অর্ডার কনফার্ম করি। তিন দিনের কথা বলে মাস পার হলেও তারা আম ডেলিভারি দেয়নি। পরে পেজটিই ডিজঅ্যাবল করে দিয়েছে।

মাহমুদ হােসেন প্রতিবেদককে বলেন, তার সঙ্গে আরও অনেকেই প্রতারিত হয়েছেন। সেসব স্ক্রিনশট সমকালকে দিয়ে তিনি জানান, একই নামে ফেসবুকে আরও পেজ থাকলেও সেগুলাে ওই পেজটি নয়।

এ ছাড়া কিছু প্রতারক আকর্ষণীয় পণ্যের ছবি আপলােড করলেও ডেলিভারির সময় নিম্নমানের পণ্য গছিয়ে দিচ্ছেন। আর এক শ্রেণি আছেন যারা ক্রেতার থেকে টাকা নিয়ে পণ্যও ডেলিভারি করছেন না। তারা ওই ক্রেতাকে ব্লক করে অন্যদের ঠকিয়ে যাচ্ছেন।

এমনই প্রতারণার শিকার হয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাবেক প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরােজ। তিনি ডিজাইনার পার্টি শাড়ি কালেকশন' নামে একটি ফেসবুক পেজে শাড়ির অর্ডার দিয়ে মূল্য ওই প্রতিষ্ঠানের ০১৪০৯০৭২৪৮৩ নম্বরে বিকাশ করেছিলেন।

নির্দিষ্ট সময়ে তারা শাড়ি তাে ডেলিভারি দেয়ইনি, উল্টো তুরিন আফরােজকে তারা ব্লক করেছে। এখনও ওই ফেসবুক পেজ চালুসহ তাদের ব্যবসায়িক কার্যক্রম অব্যাহত আছে। তুরিন আফরােজ প্রতিবেদককে বলেন, অনেকেই তাদের প্রতারণার শিকার হয়েছেন। আমার মতাে একজন সচেতন মানুষকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলতে পারে, তাহলে অন্যরাও যে তাদের প্রতারণার শিকার হবেন, এটা সহজেই অনুমেয়।'

ফেসবুকভিত্তিক উদ্যোক্তাদের সবচেয়ে বড় গ্রুপ উইমেন ইন ই-কমার্সের (উই) প্রতিষ্ঠাতা নাসিমা আক্তার নিশা বলেন, তাদের গ্রুপেই ১০ লাখের বেশি সদস্য রয়েছেন যাদের বড় একটি অংশ উদ্যোক্তা। তাদের গ্রুপে নারী উদ্যোক্তার সংখ্যাই বেশি। গ্রুপের উদ্যোক্তা ও ক্রেতার মধ্যে প্রতারণা কিংবা ভুল বােঝাবুঝি হলে সেটি আমরা সমাধানের চেষ্টা করি।

আরও পড়ুন... কিভাবে উইন্ডোজ ১১ ডাউনলোড করবেন ? How to download Windows 11 ?

প্রতারণার হাত থেকে রক্ষা পেতে ক্রেতাদের ফেসবুককেন্দ্রিক কেনাকাটায় পণ্যের দাম আগে শােধ না করে পণ্য বুঝে পেয়ে মূল্য (ক্যাশ অন ডেলিভারি) প্রদানের আহ্বান জানান নিশা।

ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের সংগঠন ই-ক্যাব সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াহেদ তমাল বলেন, ফেসবুকভিত্তিক কেনাকাটায় প্রতারণার ঘটনা নিয়ে আমাদের কাছে প্রচুর অভিযােগ আসছে।
অনেক উদ্যোক্তার তাে কোনাে ট্রেড লাইসেন্স নেই, ডকুমেন্ট নেই। ফলে তারা প্রতারণা করলে ধরা কঠিন। এজন্য আমরা প্রস্তাব দিয়েছি এফ-কমার্স উদ্যোক্তাদের এনআইডির মতাে ডকুমেন্ট নিয়ে যেন তাদের ব্যবসায়ের অনুমতিপত্র দেওয়া হয়।
এতে যেমন এফ-কমার্স উদ্যোক্তাদের প্রকৃত সংখ্যা জানা যাবে, তেমনি প্রয়ােজনে সহযােগিতাও করা সম্ভব হবে।
পুলিশের সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) ইশতিয়াক আহমেদ সমকালকে বলেন, 'ফেসবুকের মাধ্যমে কেনাকাটায় প্রতারণা কিংবা পণ্য সময়মতাে না পাওয়া সম্পর্কিত অভিযােগ নিয়ে এলে আমরা ভুক্তভােগীদের ভােক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে যাওয়ার পরামর্শ দেই।'
ই-মেইলে এ অভিযােগ সম্পর্কে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানায়, ব্যবহারকারীদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তায় আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিই। আমাদের কঠোর ই-কমার্স নীতিমালা রয়েছে। আমরা ব্যবহারকারীদের সব সময় স্ক্যামারদের (প্রতারক) সম্পর্কে রিপাের্ট করার জন্য উদ্বুদ্ধ করি। এ ধরনের প্রতারণামুলক ঘটনা আমাদের নজরে এলে সেসব পেজ ফেসবুক থেকে আমরা অপসারণ করি।'

Conclusion:

প্রতারণা করা মানুষের স্বাভাবজাত প্রবৃত্তি । নিজ স্বার্থ হাসিলের জন্য অসাধু কতিপয় ব্যক্তি সর্বদাই চেষ্টাই থাকে যে তারা কিভাবে অন্যকে প্রতারিত করবে। ইন্টারনেটের বিপুল জনপ্রিয়তা এবং ব্যবহারকারীর সাধারণ দুর্বলতা কাজে লাগিয়ে অসাধু চক্র প্রতিনিয়ত প্রতারণা করে চলেছে। তাই নিজের সুরক্ষার জন্য আজই প্রতারক চক্র হতে সাবধান হোন। অনলাইন কেনাকাটাই আগে টাকা পেমেন্ট না করে ক্যাশ অন ডেলিভারি ব্যবহার করুন।