ব্যর্থতার কারণ খোঁজা কেন জরুরী ? আমি উদ্যেক্তা হতে চাই (১ম পর্ব) Be an entrepreneur!

একজন সফল উদ্যেক্তা হওয়ার পেছনে থাকে হাজারো ব্যর্থতার গল্প। ব্যর্থতা ছাড়া কখনোই একজন উদ্যেক্তা সফলতা অর্জন করতে পারে না। তাই বলা হয়ে থাকে ব্যর্থতাই উদ্যেক্তার চালিকা শক্তি । 
Be an entrepreneur

একজন সফল উদ্যেক্তা ব্যর্থ হলে কখনোই ভেঙ্গে পড়ে না, বরং সে তার ব্যর্থতার কারণ খুঁজে, নিজের ভুল শুধরে নিয়ে পুরোদমে আবারো কাজ শুরু করে। ঠিক যেমন রবার্ট ব্রুসের গল্পতে হয়। 

গল্পটা আমরা সবাই জানি। রবার্ট একবার পলায়ন করে, যুদ্ধে হেরে আশ্রয় নেয় একটি গোহায়। সেখানে সে দেখতে পায় একটি মাকড়সা। মাকড়সাটি গোহার দেওয়াল বেয়ে উপরে উঠে জাল বুননের কাজে পর পর ৬ বার ব্যর্থ হয়ে ৭মবার ঠিকই দেওয়াল বেয়ে উঠতে সক্ষম হয়। রাজা রবার্ট ব্রুস এই ঘটনা দেখে এবং পুরোদমে নিজ দেশ স্বাধীন করার জন্য যুদ্ধে গমন করে জয়ী হয়। 

আসুন, নিচে বিশ্বখ্যাত জ্যাক মার একটি বানি পড়ি।

Be an entrepreneur
এ-রকম অসংখ্য শক্তিশালী বাণী আছে যা আপনি গুগলে সার্চ দিয়ে জ্যাকের নিকট থেকে শিখতে পারবেন। কিন্তু এই ওয়েবসাইট শুধু এসব বাণীর সগ্রহ নয়, বরং তা থেকেও অনেক বেশি। ধীরে ধীরে সমস্ত কিছু পাবলিশ করা হবে।

উদাহরণস্বরূপ, এক লাইনের জ্যাক ম্যা-এর একটি বাণী নিন—আমার কাজ হচ্ছে অধিক লােকের কর্মসংস্থান করা। এটি সুন্দরভাবে নিজেকে নিজে ব্যাখ্যা দিচ্ছে এবং আপনিও সম্ভবত এর গভীর অন্তর্নিহিত ভ্যালু অনুমান করতে পারছেন।

কিন্তু আমি বাজি ধরে বলতে পারি যে, আপনি তা এক সপ্তাহের মধ্যে ভুলে যাবেন। কিন্তু তিনি এই প্রবাদ ব্যবহার করে তাঁর প্রতিষ্ঠানকে যেভাবে শক্তিশালী করে তুলেছেন এ ব্যাপারে তাঁর ব্যাখ্যা জানতে পারলে আপনিও নিজের প্রতিষ্ঠানকে শক্তিশালী করে তুলতে পারবেন।

 ব্যর্থতার কারণ খোঁজা কেন জরুরী ? আমি উদ্যেক্তা হতে চাই  (১ম পর্ব) 

Be an entrepreneur!

এই ওয়েব সাইটের উদ্যোক্তা হতে চাই ক্যাটগরিতে আমি এর মধ্যে যােগ করব কীভাবে তিনি বিশাল প্রভাব-বলয় তৈরি করতে পারলেন। এর প্রেক্ষাপট এবং জ্যাক ম্যা-এর নিজের কথা আপনাকে শিখিয়ে দেবে কীভাবে শুধু উদ্‌গরিত হওয়া বাণী নিয়ে তাঁর মতাে বিশেষভাবে সফল হওয়া ১%-এর মতাে করে ভাবতে হয়। আমরা এই বিশেষ দক্ষতাকেই টার্গেট করছি।

জ্যাকের অনেক জীবনী পাওয়া যায়, এই প্রতিবেদনটিতে আপনাকে সেসব গল্প বলতে যাব না। আমি তাঁর গল্পটি প্রতিবেদনের পর প্রতিবেদন-এর মাধ্যমে বলে যাব এবং বলব তিনি কীভাবে সফলতার সর্বোচ্চ এই স্তরে গিয়ে পৌঁছালেন।


আমি উদ্যেক্তা হতে চাই ! জ্যাক মা : I want to be an entrepreneur! Jack Ma

আমরা সবাই সামাজিক জীব, যারা গরিব থেকে ধনী হওয়ার মহান গল্পগুলাে শুনতে পছন্দ করি। আমাদের ব্রেইন এই গল্পগুলাে পছন্দ করে, কারণ এগুলাে আমাদেরকে ওইসব লােকের কাছে নিয়ে যায় যাদের কাছে আমরা পৌছতে চাই।


বাস্তব গবেষণায় দেখা গেছে যে এসব অনুপ্রেরণাদানকারী গল্পের সুগভীর প্রভাব রয়েছে আমাদের মস্তিষ্কে এবং এগুলাে লক্ষ্যের প্রতি আমাদেরকে অধিক আন্তরিক এবং সহানুভূতিশীল করে তােলে। অধিকন্তু বাস্তব জীবনের ছোঁয়া পাওয়ার জন্য আমাদের ব্রেইন আমাদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার সঙ্গে আন্দোলিত হয়।


আমি নিজেকে একজন লেখক বা একজন সাক্ষাৎকার-গ্রহণকারী হিসেবে দেখছি না। আমি নিজেকে এমন একজন এন্ট্রাপ্রেনিউর মনে করি যার বড়াে কোনাে মেন্টরের ব্যক্তিগত উপদেশ দরকার। তাই যখনই নিয়মিতভাবে আমার চিন্তার প্রক্রিয়ায় ট্রিগার চাপার জন্য কোনাে না কোনাে ব্যক্তি বা কোনাে বিষয়ের সংস্পর্শে আসি, তখনই চিন্তার রাজ্যে আরও বেশি গভীরে খনন করা বেশ অর্থবহ হয়ে ওঠে (এই প্রতিবেদন হলাে এই প্রক্রিয়ার ফলাফল)।


আমি খুবই অনুসন্ধিৎসু মানুষ এবং গতানুগতিক জ্ঞানের সঙ্গে খুব বেশি মানিয়ে নিতে পারি না। যদি আমি কোনাে কিছুর সঙ্গে সম্পর্কিত করতে না পারি অথবা আমার সাধারণ জীবনে এর ফলাফলকে কপি করতে না পারি, তখন আমি অন্য গল্প খুঁজতে থাকি। এসব পৃষ্ঠা থেকে পাওয়া প্রতিটি লেসন এবং নােটগুলাে ব্যক্তিগতভাবে আমার সােল-এন্টাপ্রেনিউয়ারেল জার্নিতে সাহায্য করে থাকে।


নিজের ব্যবসাকে উন্নত করতে আমি ডজন-ডজন দার্শনিক তত্ত্ব ও অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়েছি। এসব শিক্ষা বিখ্যাত কোনাে মেন্টর ছাড়াই আমাকে ৬-ফিগারের পাবলিশিং কোম্পানি গড়তে সাহায্য করেছে এবং কঠিন প্রতিবন্ধকতা (অ্যাসিড টেস্ট) মােকাবিলায় সাহায্য করেছে।


প্রয়ােজনে এসব গল্প আপনাকে সাহায্য করবে। এসব অবিশ্বাস্য সফলতার গল্পতে আমাদের অনেকেই মনস্তাত্ত্বিকভাবে মুগ্ধ হয়ে থাকেন। কিন্তু যে জার্নি আমাদেরকে শীর্ষে পৌঁছে দিতে পারে, তা চিনতে আমরা ব্যর্থ হই। সফলতা অর্জনের ১০০১টি পন্থা বিভিন্ন গ্রন্থে পাওয়া যায়। কিন্তু বাস্তবিক ব্যর্থতার ডজন খানেক কারণও খুঁজে পাওয়া যায় না।


জ্যাক ম্যা-কে কী কী বিষয় বিশ্বের বিশেষভাবে সফল ১% থেকে আলাদা করে রেখেছে? তিনি শুরু করছিলেন শূন্য হাতে। কোনাে প্রকৌশলগত জ্ঞান তাঁর ছিল না, ছিল না কোনাে বিশেষজ্ঞদের প্রস্তুত করা প্ল্যান।


আলিবাবা-র সফলতার ভিত্তি হলাে ই-কমার্স, লজিস্টিক এবং ফিন্যান্সে? কম্পিটিটিভ এইজ। জ্যাক যাকে বর্ণনা করেছেন ‘আয়রট্রায়াঙ্গেল’ বলে । মানুষকে তার উত্তর দিয়ে বিচার না করে বিচার করুন তার প্রশ্ন দিয়ে। তার আজকের কথাকে তাঁর ফেইস ভ্যালুতে মেনে নেওয়া সহজ কিন্তু একজন আসলে কীভাবে এই উত্তরে এসেছে তা খুঁজে বের করা প্রায়ই কঠিন হয়ে পড়ে।


চীনের সবচেয়ে বড়াে এবং বহুল পরিচিত ই-কমার্স এন্টারপ্রাইজ আলিবাবা–যার নেট ওর্থ প্রায় $৩৫ বিলিয়ন ডলারের বেশি হওয়াতে জ্যাক এখন চীনের ১.৩৮ বিলিয়ন মানুষের মধ্যে সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি।


জ্যাক কিছু সরল নিয়মনীতি তৈরি করতে পেরেছেন যা বাস্তবতাকে তাঁর অনুকূলে ঝুঁকিয়ে দিয়েছে এবং বিশ্বের মধ্যে আসা প্রকৌশলগত পরিবর্তন তাঁর পক্ষে কাজ করেছে।


একটি কঠিন সময়ে রক্ষণশীল চীনে ব্যবসা শুরু করার যত গতানুগতিক নিয়মনীতি আছে তার কোনােটির প্রতিই তিনি তােয়াক্কা করেননি। তারপরও বিশ্বের প্রেসিডেন্ট, প্রাইম মিনিস্টার, রাজনীতিবিদ এবং ফেলাে এন্ট্রাপ্রেনিউরদের মধ্যে তাঁর মুক্তমন, মানবতাবােধ, আত্মত্যাগ, অবিরাম উন্নয়ন এবং আকর্ষণীয় রসিকতার অনুভূতি দিয়ে তিনি সবার শ্রদ্ধা এবং ভালােবাসা অর্জন করেছেন।


জীবনের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষদের সঙ্গে তাঁর কৌশলী আচরণ বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, সরকার, চীন ও চীনের বাইরের সংগঠনসমূহের সঙ্গে তাঁকে অংশীদারিত্বে নিয়ে এসেছে, তাকে বিশ্বের সত্যিকারের প্রভাব বিস্তারকারীদের একজনে পরিণত করেছে।


হাংজহু, চীন থেকে একজন স্কুলশিক্ষক হিসেবে সরলভাবে যাত্রা শুরু করার পর থেকে জ্যাক শুধু তাঁর স্বপ্নকে অনুসরণ করেছেন এবং নিজের দুটি হাত দিয়ে বিলিয়ন ডলারের ব্যবসায়িক সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছেন।


আপনি কী জানেন একসময় জ্যাক হাংজহু, চীনের একজন ইংরেজির শিক্ষক হিসেবে মাসে মাত্র ১২ ডলার করে বেতন পেতেন?

এখানেই রয়েছে মজার ব্যাপারগুলাে...!


২য় পর্ব পড়ুন...

ব্যর্থতায় হাল ছেড়ো না বন্ধু- আমি উদ্যেক্তা হতে চাই (২য় পর্ব) Be an entrepreneur!

Conclusion:

আজকে এই পর্য্যন্তই । এখন থেকে নিয়মিত আমি উদ্যেক্তা হতে চাই ক্যাটাগরিতে জ্যাক মার সফলতা ব্যর্থতার গল্প, একজন সফল উদ্যেক্তা হওয়ার পেছনের কারণ, কি করে একজন সফল উদ্যেক্ত হওয়া যায়, একজন সফল উদ্যেক্তার ব্যর্থতা-পথ চলা, পরিশ্রম সব কিছু নিয়েই আলোচনা করা হবে । প্রতি প্রতিবেদনে পরের পর্বের লিংক সংযুক্ত করা হবে যেন সহজেই পর্ব থেকে পর্ব খুঁজে পাওয়া যায়।


Last line: ব্যর্থতার কারণ খোঁজা কেন জরুরী ? আমি উদ্যেক্তা হতে চাই (১ম পর্ব) Be an entrepreneur!

Post a Comment

Post a Comment (0)

Previous Post Next Post